কাপাসিয়ায় করোনায় আক্রান্ত আরও ছয়জন

যোগফল প্রতিবেদক

12 Apr, 2020 08:01pm


কাপাসিয়ায় করোনায় আক্রান্ত আরও ছয়জন

গাজীপুর জেলার কাপাসিয়া উপজেলার দস্যু নারায়ণপুর গ্রামের একটি ফিড মিল লিমিটেড কারখানায় কর্মরত আরও ৬ শ্রমিকের শরীরে করোনাভাইরাস বা কোভিড ১৯ শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে ওই কারখানায় মোট ৭ জন করোনায় আক্রান্ত হলো। ফলে কাপাসিয়া উপজেলায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৯ জনে।

রোববার [১২ এপ্রিল ২০২০] দুপুরে অনলাইন প্রেস ব্রিফিংয়ে যুক্ত হয়ে জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর) এর পরিচাউলক অধ্যাপক ডাক্তার মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা নতুন করে যে ১৩৯ জনের করোনা আক্রান্তের খবর দিয়েছেন, তাদের ৬ জন কাপাসিয়ার।

কাপাসিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার আব্দুস সালাম সরকার জানান, নতুন আক্রান্ত সকলেই ওই ফিড মিল লিমিটেডের শ্রমিক। আক্রান্ত ৬ জনকে আলাদা করে একটি নির্দিষ্ট বড় কক্ষকে আইসোলেশন করে সেখানে রাখা হয়েছে।

গত শুক্রবার ওই কারখানার একজন শ্রমিকের করোনা পরীক্ষার ফল পজিটিভ হওয়ার পর কারখানা ও দস্যুনারায়নপুর গ্রামটি লক ডাউন করা হয়। শনিবার থেকে পুরো গাজীপুর জেলাই লকডাউন করা হয়েছে।

তিনি জানান, উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ, উক্ত কারখানার একজন শ্রমিকের করোনাভাইরাস বা কোভিড ১৯ এ আক্রান্ত হওয়ার পর কারখানার কর্মরত অন্য শ্রমিকদের করোনাভাইরাস পরীক্ষার নমুনা সংগ্রহের কাজ শুরু করে। শনিবার উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে ৩ জন কর্মী কারখানার ভিতরে থাকা ১৩০ জন শ্রমিকদের মধ্যে থেকে ৭৬ জনের করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য নাক ও মুখের সোয়াব সংগ্রহ ঢাকায় পাঠানো হয়। 
তিনি আরও জানান, কারখানার ভিতরে অবস্থানকারী অবশিষ্ট শ্রমিকদের মধ্যে ৩৫ জনের করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য নাক ও মুখের সোয়াব সংগ্রহ করে রোববার ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। বাকিদের নমুনা আগামীকাল সোমবার সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠানো হবে।

কাপাসিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, লকডাউন করা কারখানা ও দস্যুনারায়নপুর গ্রামে পুলিশের পাহারা রয়েছে। কারখানার বাইরে থাকা শ্রমিকদের নিজ নিজ বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টাইন এ থাকার জন্য নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে। নির্দেশনা বাস্তবায়নের জন্য পুলিশ সদস্য ও আনসার সদস্যরা কাজ করে যাচ্ছেন।


বিভাগ : হ-য-ব-র-ল