নারায়ণগঞ্জের পাঁচ অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘ব্লকড’, কারণ জানেন না সম্পাদকরা

যোগফল প্রতিবেদক

31 May, 2020 10:26pm


নারায়ণগঞ্জের পাঁচ অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘ব্লকড’, কারণ জানেন না সম্পাদকরা
ছবি প্রতীকী

ঘোষণা ছাড়াই নারায়ণগঞ্জের পাঁচটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বলে সেই পোর্টালগুলোর পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) তাদের কিছুই জানায়নি। ফলে ‘ব্লক’ হওয়ার সুনির্দিষ্ট কারণও জানেন না সম্পাদকরা।

অনলাইন নিউজ পোর্টালগুলোর সূত্রে জানা গেছে, গত ১৪ মে সন্ধ্যা থেকে নারায়ণগঞ্জসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে পাঠকেরা ‘যুগের চিন্তা টোয়েন্টিফোর ডটকম, নিউজ নারায়ণগঞ্জ টোয়েন্টিফোর ডটনেট, প্রেস নারায়ণগঞ্জ ডটকম, নারায়ণগঞ্জ টুডে ডটকম ও সময় নারায়ণগঞ্জ ডটকম’ এই পাঁচটি অনলাইন নিউজ পোর্টালে ঢুকতে পারছেন না। প্রথম কয়েকদিন কদাচিৎ পাঠকরা ঢুকতে পারলেও ২২ মে থেকে আর প্রবেশ করা যাচ্ছে না।

শুরুতে বিষয়টি কারিগরি ত্রুটি মনে করা হলেও নিউজ পোর্টালগুলোর সংশ্লিষ্টরা বলছেন, নিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষের দ্বারা ওয়েবসাইটগুলো ব্লক হওয়ার ব্যাপারে তারা নিশ্চিত হয়েছেন।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ টোয়েন্টিফোর ডটনেটের এডিটর ইন চিফ শাহজাহান শামীম বলেন, নারায়ণগঞ্জের হাসপাতালগুলোতে করোনা চিকিৎসার সুযোগ সুবিধা নিয়ে একটি খবর প্রকাশের কারণে তাদের ওয়েবসাইট ব্লক হয়ে থাকতে পারে। তিনি বলেন, ‘যথেষ্ট তথ্য-প্রমাণ সংগ্রহ করে পেশাদারিত্বের সঙ্গে “নারায়ণগঞ্জে নামেই করোনা হাসপাতাল” শিরোনামে একটি খবর প্রকাশ করা হয়েছিল। সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর বক্তব্যও সংযুক্ত ছিল ওই প্রতিবেদনে। মূলত সংবাদটি আপলোড হওয়ার পর জেলা প্রশাসনের সভাতেই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের পক্ষে একটি লিখিত আবেদন করা হয়। ওই সময়ে সভায় উপস্থিত কয়েকজন নিউজ নারায়ণগঞ্জ টোয়েন্টিফোর ডটনেটের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি তুলেন। তখন নারায়ণগঞ্জের একজন প্রভাবশালী এমপিও এ ব্যাপারে কথা বলেন এবং নিউজ নারায়ণগঞ্জসহ সময়ের নারায়ণগঞ্জ, অনলাইন পোর্টাল নারায়ণগঞ্জ টুডে ও প্রেস নারায়ণগঞ্জের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেন। আর একজন এমপি তখন যুগের চিন্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলেন। মূলত সেদিন সন্ধ্যার পর থেকেই নারায়ণগঞ্জের পাঁচটি অনলাইন পোর্টালে ঢোকা যাচ্ছে না।’

তার দাবি, জনপ্রতিনিধি, এমপি, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কিংবা কাউকে কোন ধরনের আঘাত দেওয়ার জন্য তারা ওই প্রতিবেদন প্রকাশ করেননি। বরং হাসপাতালের বর্তমান পরিস্থিতিই ছিল তাদের প্রতিবেদনের বিষয়বস্তু।

শামীম আরও বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি শুধু ওই প্রতিবেদনের কারণেই অনলাইন পোর্টালগুলো বন্ধ করা হয়নি বরং এর পেছনে আরও কোনো কারণ ছিল। হাসপাতালের প্রতিবেদনটিকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে।

যুগের চিন্তা টোয়েন্টিফোর ডটকমের এডিটর ইন চিফ মোরসালিন বাবলা বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জের একটি মহল যারা গণমাধ্যমের কণ্ঠরোধ করার জন্য প্রতিনিয়ত চেষ্টা চালিয়ে যান তারাই অনলাইনগুলো বন্ধ করে দিয়েছে। যাতে করে তাদের অপকর্ম, দুর্নীতি প্রকাশ না পায়। এ মহলটি চায় না নারায়ণগঞ্জে ভালো গণমাধ্যমের অস্তিত্ব থাকুক, বাক স্বাধীনতা থাকুক, মানুষ কথা বলুক, দুর্নীতি, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে লিখুক।’

এ মহলটি কে বা কারা? জবাবে তিনি বলেন, ‘যার ক্ষমতা আছে তিনিই এ কাজ করেছে। নারায়ণগঞ্জে ক্ষমতাবান করা, কারা ক্ষমতার অপপ্রয়োগ ঘটায় এটা নারায়ণগঞ্জের মানুষ জানে। এ মহলটি চিহ্নিত।’

তিনি বলেন, ‘সাধারণ ছুটির মধ্যে অনলাইনগুলো বন্ধ করা হয়েছে। তাই কোনো পদক্ষেপ নেওয়া যায়নি। তাছাড়া আমরা প্রথমে বুঝতে পারছিলাম না কী হয়েছে। আমরা মনে করেছি কারিগরি ত্রুটি। পরে জানতে পারি বিটিআরসি বন্ধ করে দিয়েছে। অনলাইনগুলো চালু করার দাবিতে ১ জুন থেকে বিটিআরসির ও ডিসিকে স্মারকলিপি দেওয়া, মানববন্ধন, অনশনসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হবে।’

অন্য অনলাইনগুলোর সম্পাদকেরাও বন্ধের কারণ জানেন না বলে জানান তিনি।

এ ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন বলেন, ‘অনলাইনগুলো আমার কাছ থেকে অনুমোদন নেয় না। তাই এ বিষয়ে আমার জানা নেই।’

জেলা প্রশাসনের সভায় নিউজ পোর্টালগুলোর বিরুদ্ধে এমপিদের অভিযোগের ব্যাপারে জানতে চাইলে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর অনুষ্ঠান শেষে তারা এ বিষয়ে কথা বলেন। অনেকেই বলেছেন, অনলাইনগুলো হুটহাট যেসব নিউজ করে এগুলো নারায়ণগঞ্জবাসী ও দেশের জন্য ক্ষতিকর। এমন আলোচনা হয়। সবাই আলোচনা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। কিন্তু অনলাইনগুলোর অনুমোদন আমার কাছ থেকে নেয় না সেজন্য আমি কিছু করতে পারি না।’

তিনি বলেন, ‘এখনও পর্যন্ত কেউ আমাকে জানায়নি। যেসব গণমাধ্যম বন্ধ হয়েছে তারা আমার কাছে আবেদন করলে আমি ঊর্ধ্বতনদের জানাব। সেইভাবে আলোচনা করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এ ব্যাপারে বিটিআরসির চেয়ারম্যান মো. জহুরুল হক বলেন, ‘চাইলেই বিটিআরসি কিছু বন্ধ করে না। এ বিষয়ে সরকারের কিছু নিয়ম কানুন আছে। সরকারের অনেকগুলো সংস্থাও এ বিষয়ে জড়িত এবং কোন ওয়েবসাইট বন্ধ হবে সেই সিদ্ধান্ত সেখান থেকেই হয়। আমরা কেবল বাস্তবায়ন করি।

নিউজ পোর্টাল খুলে দেয়ার দাবি ৫১ সংগঠনের বন্ধ হওয়া অনলাইন নিউজ পোর্টালগুলো দ্রুত খুলে দেওয়ার দাবিতে রোববার [৩১ মে ২০২০] বিকালে নারায়ণগঞ্জের ৫১টি সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক ও পেশাজীবী সংগঠন যৌথ বিবৃতি দিয়েছে।

বিবৃতিদাতা সংগঠন: নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোট, নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটি, সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চ, আমরা নারায়ণগঞ্জবাসী, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, নারায়ণগঞ্জ জেলা, কমিউনিস্ট পার্টি, নারায়ণগঞ্জ জেলা, বাসদ, নারায়ণগঞ্জ জেলা, গণসংহতি আন্দোলন, নারায়ণগঞ্জ জেলা, ওয়ার্কার্স পার্টি, নারায়ণগঞ্জ জেলা, ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ), নারায়ণগঞ্জ জেলা, উদীচী, নারায়ণগঞ্জ জেলা, সমগীত, খেলাঘর, নারায়ণগঞ্জ জেলা, তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি, নারায়ণগঞ্জ জেলা, সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) নারায়ণগঞ্জ জেলা, ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র, নারায়ণগঞ্জ জেলা, শ্রমিক ফ্রন্ট, নারায়ণগঞ্জ জেলা, গার্মেন্টস শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র, নারায়ণগঞ্জ জেলা, বাংলাদেশ গার্মেন্ট শ্রমিক সংহতি, নারায়ণগঞ্জ জেলা, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন, নারায়ণগঞ্জ জেলা, ছাত্র ফ্রন্ট, নারায়ণগঞ্জ জেলা, ছাত্র ফেডারেশন, নারায়ণগঞ্জ জেলা, মহিলা ফ্রন্ট, নারায়ণগঞ্জ জেলা, নারী সংহতি, নারায়ণগঞ্জ জেলা, সমাজ অনুশিলন কেন্দ্র, উন্মেষ সাংস্কৃতিক সংসদ, বসন্তবাহার সঙ্গীত একাডেমি, আনন্দধারা, শহুরে গায়েন, ষড়জ সাংস্কৃতিক সংগঠন, অনন্যা সঙ্গীত একাডেমি, শ্রুতি সাংস্কৃতিক একাডেমি, প্রগতি লেখক সঙ্ঘ, ধাবমান সাহিত্য আন্দোলন, প্রগতি সাহিত্য পরিষদ, গঙ্গাফড়িং, হাওইয়ান গীটার পরিষদ, চন্দ্রবিন্দু, একতা খেলাঘর, সমীরণ খেলাঘর, ক্রান্তি খেলাঘর, কণ্ঠমালা আবৃত্তি সংগঠন, এই বাংলায়, অশোক স্মৃতি সঙ্গীতাঙ্গণ, চারণ সাংস্কৃতিক কেন্দ্র, নারায়ণগঞ্জ জেলা, কথন আবৃত্তি সংগঠন, যোদ্ধা, অর্চণা একাডেমি, ঐকিক থিয়েটার, উঠান থিয়েটার ও সমমনা সামাজিক সংগঠন।


বিভাগ : মুক্তমত