আগাম জামিন শুনানি বন্ধই রয়েছে

যোগফল প্রতিবেদক

05 Jul, 2020 01:53am


আগাম জামিন শুনানি বন্ধই রয়েছে
সুপ্রীমকোর্ট

করোনাকালে উচ্চ আদালতে বন্ধ আগাম জামিন আবেদনের শুনানি। অধস্তন আদালতেও আসামিরা আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইতে পারছেন না। স্পষ্ট নির্দেশনা না থাকায় ভার্চুয়াল কোর্টেও এ ধরনের কোনো জামিন আবেদন গ্রহণ ও শুনানি হচ্ছে না। এসব কোর্টে শুধু হাজতি আসামির জামিন আবেদনের শুনানি হচ্ছে। সাড়ে তিন মাস ধরে আগাম জামিন আবেদনের শুনানি বন্ধ থাকায় দুর্ভোগে পড়েছেন হাজার হাজার বিচারপ্রার্থী।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি খন্দকার মাহবুব হোসেন ইত্তেফাককে বলেন, প্রতিদিন সারাদেশে বহু ফৌজদারি মামলা হয়। এর বেশির ভাগ মামলা আক্রোশমূলক। অযথা হয়রানি করতে অনেককে আসামি করা হয়। আগাম জামিনের ব্যবস্থা না থাকায় এই আসামিগুলোকে পুলিশের সঙ্গে সমঝোতা করতে হয় অনেকটা অর্থের বিনিময়ে, অথবা ঘরছাড়া হতে হয়। অবিলম্বে কোর্টগুলোতে আগাম জামিনের ব্যবস্থা করা না হলে অরাজক পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে।

মোমতাজ উদ্দিন আহমদ মেহেদী যোগফলকে জানিয়েছেন, আন্দোলনের ফলে নিম্ন আদালতে আত্মসমপর্ণের সুযোগ মিলেছে। আইনজীবীদের বাকি দাবিগুলো মানা উচিত অবিলম্বে। তিনি আগামী ৭ জুলাই আনুষ্ঠানিকভাবে সংবাদ সম্মেলন করে সাধারণ আইজীবী পরিষদের বক্তব্য তুলে ধরবেন বলেো জানিয়েছেন। তিনি এর আগে একাধিকবার নিয়মিত আদালত খুলে দেওয়ার দাবিতে সমাবেশ করেছেন।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট এ এম আমিন উদ্দিন বলেন, বিচারপ্রার্থী জনগণের দুর্ভোগের বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে দ্রুত এ ব্যাপারে সুপ্রিম কোর্টের পদক্ষেপ নেওয়া উচিত।

এ প্রসঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী ও ঢাকা ল’ রিপোর্টস (ডিএলআর) এর সম্পাদক অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান বলেন, আগাম জামিন আবেদনের ক্ষেত্রে আসামিকে সশরীরে আদালতে আত্মসমর্পণ করতে হয়। এখানে আসামি চিহ্নিতের বিষয় যুক্ত। এই বিষয়গুলো বিবেচনায় নিয়ে আগাম জামিন শুনানির জন্য প্রধান বিচারপতি হাইকোর্টে দুই-একটি ডিভিশন বেঞ্চ গঠন করে দিতে পারেন। যেখানে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি এবং সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে আইনজীবীরা মামলা পরিচালনা করবেন। এতে করে হয়তো যারা আগাম জামিনের বিচারপ্রার্থী তাদের সমস্যা কিছুটা লাঘব হবে।

এ প্রসঙ্গে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন জানিয়েছে, করোনা ঝুঁকি এড়াতে আপাতত আগাম জামিন শুনানি বন্ধ রয়েছে। পরিস্থিতির উন্নতি হলেই এ ব্যাপারে যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়া হবে। শিগিগরই এ বিষয়ে সর্বোচ্চ আদালত থেকে নির্দেশনা আসতে পারে বলে জানা গেছে।


বিভাগ : দফতর