স্পর্শকাতর বিষয় কাভার করার সময় রিপোর্টারদের জন্য দশটি বিষয়

যোগফল বার্তা বিভাগ

06 Jul, 2020 02:57am


স্পর্শকাতর বিষয় কাভার করার সময় রিপোর্টারদের জন্য দশটি বিষয়
ছবি : সংগৃহীত

ট্রমা স্পেশালিষ্ট, নিহত শিশুদের পিতামাতা এবং নির্যাতনের শিকার, যারা তাদের মানসিক আঘাত সম্পর্কে রিপোর্টারদের সাথে কথা বলেছেন, তাদের কাছ থেকে পাওয়া নির্দেশিকা:

প্রস্তুতি: মূল ঘটনা সম্পর্কে বিশদভাবে জানার চেষ্টা করুন। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সাথে কথা বলে প্রকৃত সত্য জানার চেষ্টা করুন। কোন ভুল তথ্য তাদের মানসিক পীড়া আরও বাড়িয়ে দেবে।

সৌজন্য: তাদের দুর্ঘটনার ব্যাপারে আপনি যদি আন্তরিকভাবে দু:খ প্রকাশ করেন, তা হলে সেটা আপনার সৌজন্য প্রকাশ করবে। মানবিকতার দৃষ্টি দিয়ে ঘটনাটিকে দেখার চেষ্টা করুন। তারা যে আবেগ প্রকাশ করছেন তা বোঝার জন্য মনোযোগী হোন, তাদের স্পর্শকাতর দিকটি সম্পর্কে বোঝার চেষ্টা করুন। কৃত্রিম আবেগ দেখাতে যাবেন না। অতিরিক্ত সহমর্মিতা দেখাতে যাবেন না। পেশাদারত্বের সীমা লঙ্ঘন করবেন না। 

অবসাদ: ঘটনাপ্রবাহের চাপে তারা হয়তো অবসাদগ্রস্ত হতে পারেন, সেটা বোঝার চেষ্টা করুন। বেশি বেশি ভিডিয়ো রেকর্ড করতে যাবেন না। তাদের সাথে পরিষ্কারভাবে কথা বলুন। মাঝে মাঝে বিরতি নিন। আপনি যেটা করছেন সেটাতে তাদের সায় আছে কিনা, তা বার বার করে যাচাই করুন।

ভাষা ব্যবহার: “আপনার অবস্থাটা আমি বুঝতে পারছি” এ ধরনের কোন কথা বলতে যাবেন না। কারণ তাদের মতো পরিস্থিতিতে আপনি আসলে পড়েননি। ফলে এসব কথা বললে তাদের প্রতি অশ্রদ্ধাই প্রকাশ করা হয়। উপযাচক হয়ে তাদের কোন উপদেশ দিতে যাবেন না। তাদের কোন সমালোচনাও করবেন না।

দেহভঙ্গি: তাদের সাথে কথা বলার সময় মোবাইল ফোন চেক করবেন না। আপনার তাড়া থাকলেও তা বুঝতে দেবে না। সক্রিয়ভাবে কথা শোনার চেষ্টা করুন। নিজে কম কথা বলুন, তাদের কথা বলতে দিন।

উদ্দেশ্য বিবরণ: তাদের সাথে খোলামেলাভাবে কথাবার্তা বলুন। আপনি সংবাদের জন্য যেসব উপকরণ জোগাড় করছেন তা কিভাবে ব্যবহার করবেন, সে সম্পর্কে তাদের জানতে দিন। এই প্রক্রিয়ায় তাদের আপনার সাথে রাখুন। তাদের কাছে প্রয়োজনীয় ব্যাখ্যা দিন। কিন্তু তাদের ওপর চেপে বসবেন না।

নিয়ন্ত্রণ: ট্রমা মানুষের ক্ষমতা কমিয়ে দেয়। ফলে আপনি যা করতে চাইছেন সে ব্যাপারে তাদের হাতে কিছুটা নিয়ন্ত্রণ ছেড়ে দিন। যেমন: কোন ছবিটি আপনি ব্যবহার করবেন, সেটা তাদেরই নির্বাচন করতে দিন। কোন জায়গায় দাঁড়িয়ে বা বসে তারা আপনাকে সাক্ষাৎকার দেবেন, সে সম্পর্কে তাদের মতামত নিন।

কান্নাকাটি: ইচ্ছে করে তাদের আবেগকে উসকে দেবেন না। কিন্তু তারা যদি স্বাভাবিকভাবে আবেগাক্রান্ত হয়ে পড়েন, সেটাও থামিয়ে দেবেন না। শান্তভাবে অপেক্ষা করুন। বিরতির প্রয়োজন রয়েছে কি না, তা জিজ্ঞেস করুন।

সাক্ষাৎকার: আপনি কোন বিষয়ে প্রশ্ন করবেন, সে সম্পর্কে তাদের ধারণা দিন। বেশি বেশি জেরা করবেন না। মনে রাখবেন, আপনার সাক্ষাৎকারে ফলে তাদের নতুন মানসিক ক্ষত তৈরি হতে পারে।

বিদায়পর্ব: আপনার ওপর যতই চাপ থাকুক না কেন, তাড়াহুড়ো করে তাদের কাছ থেকে বিদায় নেবেন না। অনুষ্ঠানটি প্রচারের পর তাদের সাথে যোগাযোগ করুন এবং তাদের ধন্যবাদ জানান।


বিভাগ : মর্গ