মুগদা হাসপাতাল ও হোটেল ৭১ এর নথি তলব দুদকে

যোগফল রিপোর্ট

13 Jul, 2020 06:46am


মুগদা হাসপাতাল ও হোটেল ৭১ এর নথি তলব দুদকে
ছবি : সংগৃহীত

ঢাকার মুগদা হাসপাতাল ও হোটেল-৭১ এর ‘অনিয়ম ও দুর্নীতি সংক্রান্ত’ নথি তলব করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। 

রোববার [১২ জুলাই ২০২০] দুদকের প্রধান কার্যালয় থেকে সংস্থার উপসহকারী পরিচালক মোহাম্মদ শহাজাহান মিরাজের সই করা এক নোটিশে এসব নথি তলব করা হয়।

দুদকের পরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মুগদা ৫০০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালের পরিচালককে একটি চিঠি দেওয়া হয়েছে। এছাড়া আর একটি চিঠি দেওয়া হয়েছে ‘হোটেল ৭১ লিমিটেড’এর ব্যবস্থাপনা পরিচালককে।

চিঠিতে বলা হয়েছে, মুগদা হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক, ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার করে সরকারি অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযোগের বিষয়ে তদন্তের জন্য সংশ্লিষ্ট নথি পর্যালোচনা প্রয়োজন।

দুদকের তলবি নথির মধ্যে রয়েছে ৫০০ শয্যা বিশিষ্ট মুগদা জেনারেল হাসপাতালের করোনা রোগীদের চিকিৎসা সেবাদাতা ডাক্তার, নার্স ও অন্যদের থাকা-খাওয়ার মূল্য (রেট/হার) সংক্রান্ত হোটেল-৭১ এর সঙ্গে যোগাযোগ, আলোচনা ও সম্পাদিত চুক্তিপত্রের সত্যায়িত অনুলিপি।

এছাড়া হোটেল-৭১ এর অনুকূলে এ পর্যন্ত পরিশোধিত অর্থের ব্যয় মঞ্জুরিপত্রের কপি, বিলের কপি ও চেকের কপি, চেক গ্রহণকারীর নাম, ঠিকানাসহ সংশ্লিষ্ট নথির সত্যায়িত অনুলিপি চাওয়া হয়েছে।

একইভাবে হোটেল ৭১ এর কাছে হাসপাতালের সঙ্গে সম্পাদিত চুক্তিপত্র ও অন্যান্য নথি চাওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত করোনকালে চিকিৎসক ও নার্সদের থাকার জন্য হোটেল ৭১’র সঙ্গে চুক্তি করে মুগদা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। সেখানে বড় ধরনের অনিয়ম করা হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

অভিযোগ রয়েছে নকল এন-৯৫ মাস্ক নিতে অস্বীকৃতি ও হোটেলভাড়ায় দুর্নীতির প্রতিবাদ করাসহ নানাবিধ কারণে মুগদা হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক ও মুগদা মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক শাহ গোলাম নবী তুহিনকে দুই দায়িত্ব থেকেই অব্যাহতি দিয়ে গত ২৪ মে গাজীপুরে বদলি করা হয়েছে। তুহিন হাসপাতালের করোনা চিকিৎসা বিষয়ক কমিটির সদস্য ছিলেন। ওই সময় নতুন পরিচালক হিসেবে হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডাক্তার মো আবুল হাশেম শেখকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। এছাড়া হাসপাতালের চক্ষু বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডাক্তার মো আব্দুল মোতালেবকে ওএসডি করা হয়। হাসপাতালের কোভিড -১৯ বিষয়ক কমিটির ফোকাল পারসন ডাক্তার মাহবুবুর রহমান কচিকে বদলি করা হয় জামালপুরে। আর হাসপাতালের নাক কান গলা বিভাগের চিকিৎসক ও হাসপাতালের কভিড -১৯ বিষয়ক কমিটির সদস্য ডাক্তার মনি লাল আইচ লিটুকে বদলি করা হয় সিলেটে।


বিভাগ : অপরাধ


এই বিভাগের আরও