‘দুর্নীতি সংরক্ষণে সরকারি পরিপত্র’

যোগফল প্রতিবেদক

06 Aug, 2020 04:52pm


‘দুর্নীতি সংরক্ষণে সরকারি পরিপত্র’
ছবি : সংগৃহীত

বিনা অনুমতিতে সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে অভিযান পরিচালনা না করার নির্দেশ দিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের জারি করা নতুন পরিপত্রকে ‘দুর্নীতি সংরক্ষণে সরকারি পরিপত্র’ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

বৃহস্পতিবার [৬ আগস্ট ২০২০] কুড়িগ্রামে নিজ বাসভবন থেকে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

রিজভী বলেন, ‘স্বাস্থ্য খাতে এক ভয়ঙ্কর দুর্নীতি বিরাজ করছে। দুর্নীতিতে স্বাস্থ্য খাত ধ্বংস হয়ে গেছে। এরমধ্যে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় একটি পরিপত্র জারি করেছে, সরকারি অনুমতি ছাড়া কোনো হাসপাতালে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কোনো অভিযান পরিচালনা করতে পারবে না। এর মাধ্যমে প্রমাণ হয়েছে, সরকার দুর্নীতিকে সংরক্ষণ করতে চায়, প্রোটেকশন দিতে চায়।’

তিনি বলেন, ‘আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অভিযান পরিচালনা না করলে রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদ এবং জেকেজির চেয়ারম্যান ডাক্তার সাবরিনার দুর্নীতি প্রকাশ পেতো না।’

বিএনপি মুখপাত্র বলেন, ‘দুর্নীতির সঙ্গে যারা জড়িত তারা সরকারি দলের। তাদের প্রোটেকশন দেওয়ার জন্যই এই পরিপত্র জারি করা হয়েছে। এর ফলে সামনের দিনগুলো স্বাস্থ্য খাতে আরও ভয়ঙ্কর দুর্নীতি হবে। মানুষ কোনো সেবাই পাবে না।’

তিনি বলেন, ‘দুর্নীতিতে স্বাস্থ্য খাত ধ্বংস হওয়ার পরও সরকারের টনক নড়েনি। তারপরও গতকালকে মূলত দুর্নীতির পক্ষে পরিপত্র জারি করেছে।’

রিজভী বলেন, ‘করোনা মোকাবেলায় সরকারের কোনো প্রতিকারের ব্যবস্থা ছিল না। কার্যত কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারেনি দেশবাসী তা দেখেছে। চিকিৎসা না পেয়ে মানুষ রাস্তায় অ্যাম্বুলেন্সে মারা গেছে। সরকার মানুষের সেবা দিতে ব্যর্থ হয়েছে।’

বন্যা পরিস্থিতি তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘সরকার কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। ত্রাণ এবং বন্যা মোকাবিলায় নানা ধরনের পদক্ষেপ নেওয়ার কথা থাকলেও বাস্তবে আমি কোথাও তা দেখিনি। বানভাসি মানুষ খাদ্যের অভাবে মানবেতর জীবনযাপন করছে।’


বিভাগ : স্বাস্থ্য