ঢাকা-১৮ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশা করছেন ৫৬ জন

যোগফল রিপোর্ট

24 Aug, 2020 07:29am


ঢাকা-১৮ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশা করছেন ৫৬ জন
ছবি : সংগৃহীত

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুনের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া ঢাকা-১৮ সংসদীয় আসনের উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশা করছেন ৫৬ জন।

আসনটিতে গত ১২ বছর ধরে সংসদ সদস্য ছিলেন সাহারা খাতুন। গত ১০ জুলাই বার্ধক্যজনিত কারণসহ নানান অসুস্থতায় মৃত্যুবরণ করেন প্রবীণ সাহারা। তার মৃত্যুতে আসনটি শূন্য ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

একাদশ সংসদের মোট পাঁচটি আসন শূন্য হয়েছে। এরমধ্যে রোববার পাবনা-৪ আসনে ২৬ সেপ্টেম্বর, ঢাকা-৫ ও নওগাঁ-৬ শূন্য আসনে ১৭ অক্টোবর উপ-নির্বাচন করার তফসিল ঘোষণা করেছে ইসি। আর বাকি দুই শূন্য আসন ঢাকা-১৮ ও সিরাজগঞ্জ-১ এর উপ-নির্বাচনের তফসিল ৯০ দিন পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এসব আসনগুলোর উপ-নির্বাচনে ১৪০ জন আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী। যাদের মধ্যে ৫৬ জনই চান ঢাকা-১৮ আসনের মনোনয়ন।

প্রয়াত এমপি সাহারা খাতুনের আসনে ৫৬ মনোনয়নপ্রত্যাশীদের মধ্যে রয়েছেন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলা লীগ, যুব মহিলা লীগের সাবেক ও বর্তমান নেত্রী, সাবেক সংসদ সদস্য, সাবেক সচিব, পুলিশের সাবেক ডিআইজি, সাবেক জেলা জজ, চিকিৎসক, শিক্ষক ও কাউন্সিলর।

এদিকে শূন্য হওয়া পাঁচটি আসনে প্রার্থী বাছাই করতে গত ১৭ আগস্ট থেকে দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। যা রোববার [২৩ আগস্ট ২০২০] শেষ হয়েছে।

আওয়ামী লীগের উপ-দফতর সম্পাদক সায়েম খান গণমাধ্যমকে বলেন, শূন্য হওয়া পাঁচটি আসনের উপ-নির্বাচনে মোট ১৪০টি মনোনয়ন ফরম বিক্রি করা হয়েছে। এর মধ্যে শুধু ঢাকা-১৮ আসনেই ৫৬টি মনোনয়ন ফরম বিক্রি হয়েছে।

প্রতিটি ফরম বিক্রি হয়েছে ৩০ হাজার টাকায়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সন্তান সায়মা ওয়াজেদ পুতুল মনোনয়ন ফরম কিনেননি। তিনি মনোনয়ন ফরম কিনবেন বলেও কোন তথ্য দেওয়া হয়নি। কিন্তু মনোনয়ন বোর্ডের সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার আগেই সায়মা ওয়াজেদ পুতুল মনোনয়ন পেয়েছেন মর্মে আওয়ামীলীগের নেতা ও সমর্থকরা এমন অভিনন্দন বার্তা দিচ্ছেন ফেসবুকে। এই প্রক্রিয়াকে অনেকে গুজব বলে প্রচার করছেন। পরে অনেকে পুতুলকে মনোনয়ন দেওয়ার দাবি জানাচ্ছেন। 

আওয়ামী লীগের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা ডক্টর মোমতাজ উদ্দীন আহমদ মেহেদেী ওই আসনে মনোনয়ন ফরমে কিনেন। পুতুল মনোনয়ন পাচ্ছেন এমন সংবাদের জেরে তিনি পুতুলকে সমর্থন দিচ্ছেন বলে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন। পরে তিনি ফরম দিয়ে কৈফিয়ৎ দিয়েছেন।

ঢাকা-১৮ আসনের উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশীদের মধ্যে রয়েছেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আবদুল হাফিজ মল্লিক, যুব মহিলা লীগের সভাপতি ও সংরক্ষিত নারী আসনের সাবেক সংসদ সদস্য নাজমা আকতার, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের খান, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সহ-সভাপতি মতিউর রহমান, বিমানবন্দর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. শাহাজান আলী মণ্ডল, উত্তরা পশ্চিম থানা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মজিবুর রহমান, যুবলীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য মো. আবুল বাশার, ভাষানটেক থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি মো. ইয়াজ আলী ফকির, ডিএনসিসির ৪৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জাহিদুল ইসলাম মোল্লা, উত্তরা পশ্চিম থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মনোয়ারুল ইসলাম চৌধুরী রবিন, চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এমএ রাজ্জাক খান, উত্তরা পশ্চিম থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য মুনতাজুল করিম, ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মো. খসরু চৌধুরী, আওয়ামী লীগের উপকমিটির সাবেক সহ-সম্পাদক নাজমুল হক বাবু, সাবেক সচিব মোহাম্মদ মুসা, পুলিশের ঢাকা রেঞ্জের সাবেক ডিআইজি এসএম মাহফুজুল হক নূরুজ্জামান, মহিলা লীগের আইনবিষয়ক সম্পাদক ও অবসরপ্রাপ্ত জেলা জজ রেবেকা বেগম, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মো. নাজিম উদ্দিন, সাবেক বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা এমএ মোফাজ্জল হোসেন, আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য মমতাজ উদ্দিন মেহেদি, ঢাকা মহানগর যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন, উত্তরখান থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি কামাল উদ্দিন, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. আফসার উদ্দিন খান, সাবেক উত্তরখান ইউনিয়নের ২নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের আইন সম্পাদক নির্মল ডিকস্তা, খিলক্ষেত থানা যুব মহিলা লীগের সভাপতি নাজমা আক্তার, নরসিংদী জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মোজাম্মেল হক, ভাটারা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইসহাক মিয়া, উত্তরা পশ্চিম থানা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান, ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও ৫০নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ডিএম শামীম, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি মো. হাবিব হাসান, বঙ্গবন্ধু আইনজীবী পরিষদের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মোহা. কবির হোসাইন, খিলক্ষেত থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি কেরামত আলী দেওয়ান ও সাধারণ সম্পাদক আসলাম উদ্দিন, সাবেক সংসদ সদস্য মনিরুল ইসলাম, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য আনোয়ারুল ইসলাম, ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য আবদুল ওয়াদুদ, চাঁদপুর সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, আওয়ামী লীগের প্রাথমিক সদস্য কাজী খলিলুর রহমান, উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল শাখা স্বাচিপের সভাপতি ডা. সাব্বির আহমেদ খান, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব মাহমুদ সাজ্জাদ, তেজগাঁও থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য এসএম হোসাইন, উত্তরা পূর্ব থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি কুতুব উদ্দিন আহমেদ ও সহ-সভাপতি রহিমুল হক, মহিলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নাসিমা ফেরদৌস, আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপকমিটির সাবেক সদস্য মোজাম্মেল হোসেন মাতুব্বর (আমিনুল), ভাটারা থানা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মিজানুর রহমান, ১৭নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য জিন্নাত আলী, উত্তরা পশ্চিম থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি শেখ মামুনুল হক, যুবলীগ নেতা হৃদয় চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা সংহতি পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) মো. রেজাউল করিম, হাজী জিন্নাত আলী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শেখ মোহাম্মদ, ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য মোহাম্মদ ওয়ালী আল কাদির, সাবেক দক্ষিণখান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মফিজউদ্দিন আহমেদ, পাবনার বেড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আবদুল আজিজ খান, ফরিদপুর কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ শামীম রেজা ও উত্তরা পূর্ব থানা আওয়ামী লীগের সদস্য এস ফয়সাল আহমেদ।


বিভাগ : নির্বাচন