১১ দিনেই ওসি বদলি

যোগফল রিপোর্ট

22 Sep, 2020 08:03pm


১১ দিনেই ওসি বদলি
ছবি : সংগৃহীত

সুনামগঞ্জ জেলার ছাতক থানার ওসি হিসেবে সনজুর মোরশেদ ১২ সেপ্টেম্বর যোগদান করেছিলেন। শাল্লা থানা থেকে ছাতক থানায় যোগদান করার ১১ দিনের মাথায় ২২ সেপ্টেম্বর সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে তার বদলির নির্দেশ আসে।

২০১৪ থেকে ১৬ সালের কয়েক মাস ছাতক থানায় এসআই হিসেবে কর্মরত ছিলেন থানার বর্তমান ওসি সনজুর মোরশেদ। পরে তিনি ছাতক থেকে পরিদর্শক (তদন্ত) হিসেবে দায়িত্ব নিয়ে যোগদান করেছিলেন সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায়। চৌকস পুলিশ অফিসার হিসেবে সুনামগঞ্জ সদরবাসীর কাছে তিনি জনপ্রিয় হয়ে উঠেন। এরপর এখান থেকে পদোন্নতি নিয়ে ওসি হয়ে যোগদান করেছিলেন শাল্লা থানায়।

সেখানে মাত্র ২ মাস ১০ দিন ওসি হিসেবে থেকে তিনি কয়েকটি গ্রামের মানুষকে অন্যায় কার্যক্রম থেকে মুখ ফিরিয়ে আনতে সক্ষম হন। তার মাধ্যমে আলোর ছোঁয়া দেখেছিলেন শাল্লাবাসী। এসব কার্যক্রমের সচিত্র সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ায় সবার প্রশংসা পেয়েছিলেন তিনি।

যোগদানের পর সততা, ন্যায়নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সঙ্গে ছাতক থানাকে মাদক, জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, জুয়া ও নদীকে চাঁদাবাজ মুক্ত করার ঘোষণা দেন নবাগত ওসি সনজুর মোরশেদ। তিনি পেশাদার চোর ডাকাতদের আত্মসমর্পণ করার জন্য পুরস্কার হিসেবে পুনর্বাসন করার ঘোষণা দেন।

রোববার থানার এসআই হাবিবুর রহমানসহ অন্য পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে সুরমা নদীতে যান এবং নৌকাযোগে নৌযান চাঁদামুক্ত রাখতে ১৩ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে মাইকিং করেন ওসি সনজুর মোরশেদ।

এসব সাফল্য ও মেধা দেখে বাংলাদেশ পুলিশপ্রধান (আইজিপি) বেনজীর আহমদের দৃষ্টি পড়ে ওসি সনজুর মোরশেদের ওপর। ফলে দুর্নীতিগ্রস্ত ককসবাজার জেলায় পদায়নের লক্ষ্যে পুলিশের ভাবমূর্তি ফিরিয়ে আনতে সারা বাংলাদেশ থেকে ৮ জন দক্ষ, চৌকস ও মানবিক দায়িত্ব সম্পন্ন ওসি চট্টগ্রাম রেঞ্জে বদলি করা হয়। তাদের মধ্যে অন্যতম হলেন ছাতক থানার নবাগত ওসি সনজুর মোরশেদ। তিনি নেত্রকোনা জেলার মদন উপজেলার বাসিন্দা।


বিভাগ : দফতর