কোনাবাড়ী থানার এসআই আবু সাইদের বিরুদ্ধে ঘুস দাবির অভিযোগ

যোগফল প্রতিবেদক

14 Oct, 2020 05:46pm


কোনাবাড়ী থানার এসআই আবু সাইদের বিরুদ্ধে ঘুস দাবির অভিযোগ
ছবি : সংগৃহীত

গাজীপুর মেট্রোপলিটন (জিএমপি) কোনাবাড়ি থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. আবু সাইদ মিয়ার বিরুদ্ধে ঘুস দাবির অভিযোগ উঠেছে।

এ ব্যাপারে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী কোনাবাড়ী কুদ্দুসনগর পেয়ারা বাগান এলাকার মো. আব্দুর রহিম মিয়া ও আব্দুল করিম মিয়া।

মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর ২০২০) তারিখ দুপুরে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ হেডকোয়ার্টাসে গিয়ে তারা লিখিত অভিযোগ করেন।

অভিযোগে সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে (জিএমপি) কোনাবাড়ী থানায় কর্মরত এসআই মো. আবু সাইদ ৫০ হাজার টাকা ঘুস দাবিসহ নানা ভাবে হয়রানি করে আসছে।

গত ৭ অক্টোবর সকাল সাড়ে এগারোটার দিকে কোনাবাড়ি কুদ্দুসনগর পেয়ারা বাগানসহ আশেপাশের বেশ কয়েকটি এলাকায় অবৈধ তিতাস গ্যাসের উচ্ছেদ অভিযান চলে।

ওই অভিযান চলাকালে ভুক্তভোগী রহিম, করিম ব্যবসায়িক কাজে ব্যস্ত ছিলেন। এ সময় বিভিন্ন বাসা-বাড়িতে অবৈধ গ্যাসের অভিযান চলে। রহিম ও করিমদের দাবি নির্বাহি ম্যাজিস্ট্রেটসহ তিতাসের কোনো কর্মকর্তরা তাদের বাসায় তল্লাশী চালিয়ে কোনো প্রকার অবৈধ গ্যাস সযযোগ পায়নি। অথচ কোনাবাড়ি থানার এসআই আবু সাইদ মিয়া নানাভাবে তাদের হয়রানি করে আসছেন।

অভিযোগে জানায়, তিতাসের অভিযান চলাকালে কোনাবাড়ি থানার এসআই আবু সাইদ মিয়া রহিম ও করিমের বাসায় প্রবেশ করেন এবং অবৈধ গ্যাস ব্যবহারের মিথ্যা অপবাদ দিয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকেন। আবু সাইদ এরপর থেকে প্রতিনিয়ত ভুক্তভোগীদের মোবাইল ফোনে, কখনও বা বাসায় গিয়ে মামলার হুমকি দিয়ে আসেন এবং তার সঙ্গে দেখা করতে বলেন।

অভিযোগে আরও জানায়, গত ১২ অক্টোবর আবু সাইদ মিয়া কবিরের বাসার নিচে গিয়ে কবিরের স্ত্রী শাহিনা আক্তার রেখা ও রহিমের স্ত্রী মর্জিনা বেগমসহ দুইজনকে ডেকে ২৫ হাজার টাকা করে মোট ৫০ পঞ্চাশ হাজার টাকা জোগাড় করে তার তার সঙ্গে দেখা করতে বলেন। তা না হলে মামলা দিয়ে জেলহাজতে পাঠানোর হুমকি দেন। এক প্রকার ভয়ে আতঙ্কে হয়ে ভুক্তভোগীরা বাড়ি ছাড়া হয়ে আশ্রয় নেন। তারা এসআই আবু সাইদের হয়রানি থেকে বাঁচার জন্য গাজীপুর মেট্রোপলিটন হেডকোয়ার্টাসে গিয়ে লিখিত অভিযোগ করেন। 

এসআই আবু সাইদের সঙ্গে তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, তার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করা হয়েছে তা মিথ্যা। 

জিএমপি’র কোনাবাড়ি জোনের সিনিয়র সহকারি পুলিশ কমিশনার থোয়াই অংপ্রু মারমা বলেন, আমি দুইদিন ধরে কেরাণীগঞ্জে একটি ভিকটিম উদ্ধার করতে আসছি। আবু সাইদ এর ব্যাপারে আমাকে কেউ অভিযোগ করেনি। এ অভিযোগের তদন্তের দাযিত্ব পেলে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


বিভাগ : দফতর