বাঘেরবাজারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আগুন

যোগফল প্রতিবেদক

16 Nov, 2020 07:24pm


বাঘেরবাজারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আগুন
ছবি : সংগৃহীত

গাজীপুর সদর উপজেলার বানিয়ারচালা জলপাইতলী এলাকায় একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দুইটি ক্লাসরুম পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। 

রোববার দিনগত রাত অর্থাৎ সোমবার [১৫ নবেম্বর ২০২০] রাত তিনটার সময় জলপাইতলী মডেল একাডেমিতে এই আগুনের ঘটনা ঘটে। এতে প্রায় ১০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জানান ভুক্তভোগীরা। 

খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন গাজীপুর সদর উপজেলা নির্বাহি অফিসার আব্দুল্লাহ আল জাকি, জয়দেবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাবেদুল ইসলাম, গাজীপুর সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিন রিয়াজসহ ভাওয়ালগড় ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বাররা।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, এই প্রতিষ্ঠানে প্রায় ৩০০ জন শিক্ষার্থী রয়েছে। করোনাকালীন সময় বন্ধ থাকায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটিতে কোন শিক্ষার্থী আসেনা। রাত তিনটায় হঠাৎ জলপাইতলী মডেল একাডেমির লাইব্রেরি রুমের ভেতরে আগুন দেখা যায়। মুহূর্তের মধ্যে আগুন ছড়িয়ে পড়ে বিদ্যালয়ের দুইটি ক্লাসরুম পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। 

জলপাইতলী মডেল একাডেমির সূচনাকারী আকবতর আলী  পল্লান জানান, জমি সংক্রান্ত বিষয় জেরে স্থানীয় ফজলুর রহমানের সন্তান গিয়াস উদ্দিন (৬০) আমাকে এখান থেকে উচ্ছেদ করার উদ্দেশ্যে আমার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আগুন লাগিয়ে দেয় এবং আমার সন্তানকে ফজলুর রহমানের ছোট ছেলে মজিবুর রহমান (৪৫) বাদি হয়ে মিথ্যা মামলা সাজিয়ে জেলে পাঠায়।

এ বিষয়ে ফজলুর রহমানের বড় সন্তান গিয়াস উদ্দিন জানান, জমি সংক্রান্ত বিষয়ে তারা আমার উপরে হামলা চালায়। এতে আমি গুরুতর আহত হই। পরে আমার ছোটভাই মুজিবুর রহমান বাদি হয়ে জয়দেবপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করে (মামলা নম্বর ৬)  ওই মামলায় এক আসামিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ওই মামলায় মীমাংসায় রাজি না হওয়ায় নিজের প্রতিষ্ঠানে আগুন দিয়ে আমাকে ফাঁসানোর চেষ্টা করছে। আমি এর সুষ্ঠু তদন্ত দাবি জানাচ্ছি।

জয়দেবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাবেদুল ইসলাম জানান, কিভাবে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে পুরো বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শনাক্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এই ব্যাপারে গাজীপুর জেলার প্রশাসকের অফিসিয়াল ফেসবুক আইডিতে ঘটনাটি তুলে ধরা হয়েছে।



এই বিভাগের আরও