ধর্মীয় ইসুতে উসকানি নজরদারিতে রেখেছে পুলিশ

যোগফল রিপোর্ট

30 Nov, 2020 07:43am


ধর্মীয় ইসুতে উসকানি নজরদারিতে রেখেছে পুলিশ
ছবি প্রতীকী

ধর্মীয় ইসুতে কেউ উসকানি দিচ্ছে কি না, তা শনাক্ত করে আইনের আওতায় নিয়ে আসার জন্য সার্বক্ষণিক নজরদারি করছে সিআইডির সাইবার পুলিশ সেন্টার।

সিআইডি ছাড়াও পুলিশের বিশেষ শাখা, কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি), অ্যান্টি টেররিজম ইউনিট (এটিইউ) নজরদারির কাজ করছে। ধর্মীয় ইসুতে উত্তেজনা ছড়ায়, এমন কিছুর প্রচার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনে নিষেধ।

সিআইডির সাইবার পুলিশ সেন্টারের বিশেষ সুপার মুহাম্মদ রেজাউল মাসুদ গণমাধ্যমকে বলেন, ধর্মীয় ইসুতে কেউ উসকানি দিচ্ছে কি না, সার্বক্ষণিক নজরদারি করছে সিআইডির সাইবার পুলিশ সেন্টার। সেন্টারের কাজ অপরাধীকে শনাক্ত করা ও আইনের আওতায় নিয়ে আসা। তবে কারা কারা নজরদারিতে আছেন বা বিপজ্জনক বলে মনে করা হচ্ছে তা জানাননি তিনি।

তিনি বলেন, যারা ফেসবুকে পোস্ট দিচ্ছেন, তারা আইন ভঙ্গ করছেন কি না, পুলিশ খতিয়ে দেখছে। তারপর ফেসবুক বা ইউটিউব কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হচ্ছে। কখনও কখনও বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের (বিটিআরসি) সহযোগিতা নিয়ে পোস্ট সরিয়ে ফেলা হচ্ছে।

এর আগে ২৭ নভেম্বর পুলিশ সদর দপ্তরের মুখপাত্র এবং সহকারী মহাপরিদর্শক (মিডিয়া) মো. সোহেল রানা এক ভিডিয়ো বার্তায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্য্হারকারীদের ধর্মীয় ইসুতে প্রতিক্রিয়া জানানোর ক্ষেত্রে সচেতন হতে অনুরোধ জানিয়েছেন।


বিভাগ : দফতর