প্রকাশনা খাতকে শিল্প হিসেবে ঘোষণা করার দাবি

যোগফল প্রতিবেদক

23 Jan, 2021 07:37pm


প্রকাশনা খাতকে শিল্প হিসেবে ঘোষণা করার দাবি
ছবি : সংগৃহীত

প্রকাশনা খাতকে শিল্প হিসেবে ঘোষণা করার জোর দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতি। এ ছাড়া প্রকাশনা ব্যবসাকে কোনো প্রকার আইন দ্বারা নিয়ন্ত্রণ না করা এবং বই বিক্রয়ের বিষয়ে অভিন্ন নীতিমালা চান তারা।

শনিবার [২৩ জানুয়ারি ২০২১] দুপুরে ঢাকার রমনায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে সমিতির বার্ষিক সাধারণ সভায় এসব দাবি করেন নেতৃবৃন্দ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কৃষিমন্ত্রী ডক্টর আব্দুর রাজ্জাক। সভাটি উদ্বোধন করেন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

আব্দুর রাজ্জাক বলেন, প্রকাশকেরা হাজার হাজার বছর ধরে জ্ঞান বিতরণ করে যাচ্ছেন। পুস্তক বিক্রেতারা ব্যবসায়ী হলেও তাদের কাজটাও মহৎ। তবে এই পেশাগুলোতে রাতারাতি ধনী হওয়ার সুযোগ নেই। ধৈর্য ধরে ধীরে ধীরে এগোতে হবে।

আব্দুর রাজ্জাক বলেন, দেশে প্রিন্টের মান বেড়েছে। কারণ বইয়ের প্রচ্ছদ, বার্ষিক প্রকাশনা এগুলো অনেক উন্নত হয়েছে। তাই দেশের প্রিন্টিং শিল্প অনেকটা আন্তর্জাতিক মানের হয়েছে।

যুগের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হবে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, আইসিটির যুগে প্রকাশনা শিল্পের বিরাট চ্যালেঞ্জ রয়েছে। তবুও আমি বিশ্বাস করি বই পড়ার যে আনন্দ, কম্পিউটারে তা কখনও পাওয়া যাবে না। তাই আমার দৃঢ় বিশ্বাস প্রকাশনা শিল্প ভালোভাবে বেঁচে থাকবে। তবে এটা মোকাবিলা করার জন্য প্রযুক্তিগত দিক থেকে উন্নত হওয়ার কিংবা কীভাবে টিকে থাকা যায় সে বিষয়ে ভাবতে হবে।

ফরহাদ হোসেন বলেন, পোশাকের পাশাপাশি পুস্তকও বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের অংশীদার হতে পারে। এ ছাড়া বইয়ের দোকান যেন সুন্দরভাবে উপস্থাপন করা হয় সে বিষয়েও অনুরোধ করেন।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগে সভাপতি আবু আহমেদ মান্নাফি বলেন, বইয়ে নির্ভুল প্রিন্টের মাধ্যমে তথ্য উপস্থাপন করার ক্ষেত্রে আরও অবদান রাখবেন। এ সময় দায়িত্ববোধে উদ্ভূত হতেও বলেন তিনি।

বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতির সভাপতি আরিফ হোসেন ছোটনের সভাপতিত্বে আরও উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র সহ সভাপতি কায়সার-ই- আলম প্রধান, সহসভাপতি শ্যামল পাল, সহসভাপতি মির্জা আলী আশরাফ, ঢাকা শাখার সভাপতি মাজহারুল ইসলাম, সাবেক সভাপতি আলমগীর শিকদার লোটন, উপদেষ্টা ওসমান গণি, উপদেষ্টা বাহাউদ্দিন ভূঁইয়া।


বিভাগ : শিকড়