ভারতের রাজনৈতিক স্বাধীনতা হ্রাস পেয়েছে: ফ্রিডম হাউজের প্রতিবেদন

যোগফল রিপোর্ট

04 Mar, 2021 06:27pm


ভারতের রাজনৈতিক স্বাধীনতা হ্রাস পেয়েছে: ফ্রিডম হাউজের প্রতিবেদন
ছবি : সংগৃহীত

ফ্রিডম হাউজের বার্ষিক প্রতিবেদনে ভারতের অবস্থার অবনতি হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারত 'মুক্ত' পর্যায় থেকে নেমে 'আংশিক মুক্ত' পর্যায়ে নেমে এসেছে। একইসঙ্গে উদ্বেগ প্রকাশ করে সংস্থাটি জানিয়েছে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির অধীনে কর্তৃত্ববাদের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে বিশ্বের সবথেকে বড় গণতন্ত্রের দেশটি। প্রতি বছর বিশ্বজুড়ে রাজনৈতিক অধিকার ও স্বাধীনতা এবং মানবাধিকার নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করে মার্কিন সরকারের অর্থায়নে পরিচালিত অলাভজনক সংস্থা ফ্রিডম হাউজ। তাদের এ বছরের প্রতিবেদন নিয়ে ভারত সরকারের পক্ষ থেকে এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া জানানো হয়নি।

ফ্রিডম হাউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মুক্ত দেশ হিসেবে বিবেচিত দেশের তালিকা থেকে ভারতের নেমে যাওয়া বিশ্বের গণতান্ত্রিক পরিস্থিতির ওপরে বড় প্রভাব ফেলবে। ১৯৯৫ সালের পর এবারই বিশ্বের সবথেকে বেশি মানুষ 'মুক্ত নয়' এমন দেশে বাস করছেন। এ বছর বৈশ্বিক জনসংখ্যা ২০ শতাংশেরও কম মুক্ত রাষ্ট্রে বাস করতে পারছেন।

একইসঙ্গে ‘মুক্ত নয়’ এমন দেশের সংখ্যা ২০০৬ সালের পর এবারই উচ্চ।

ফ্রিডম হাউজ জানিয়েছে, ২০১৪ সাল থেকেই ভারতে মানবাধিকার সংস্থাগুলোর ওপর চাপ বেড়েছে। একই সময় থেকে সাংবাদিক ও অ্যাক্টিভিস্টদের দমন, ঘৃণাবাদী আক্রমণ বাড়তে থাকায় দেশটির নাগরিক ও রাজনৈতিক স্বাধীনতার পতন হয়েছে। ২০১৪ সালে ভারতের সাধারণ নির্বাচনে হিন্দু জাতীয়তাবাদী দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) বড় জয় পায়। পাঁচ বছর পরে আরও বড় জয় নিয়ে ক্ষমতায় ফেরেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ফ্রিডম হাউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গণতান্ত্রিক চর্চায় সবার থেকে এগিয়ে থাকা এবং চীনের মতো রাষ্ট্রের কতৃত্ববাদকে মোকাবেলার চেষ্টা বাদ দিয়ে মোদি ও তার দল ভারতকেই কতৃত্ববাদের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। মোদির অধীনে বিশ্বের গণতান্ত্রিক নেতা হওয়ার সম্ভাবনা ভারত ত্যাগ করেছে। সবার অংশগ্রহণ ও সম অধিকারের মূল্যবোধ ছেড়ে ভারত সংকীর্ণ ধর্মীয় জাতীয়তাবাদী স্বার্থের পথে হাঁটছে।

ফ্রিডম হাউজের প্রতিবেদনে, হংকংয়ের ওপর আরোপিত নিরাপত্তা আইন; বেলারুশে কারচুপির অভিযোগ থাকা সত্যেও ক্ষমতা দখল করে রাখা বেলারুশের প্রেসিডেন্ট আলেকজান্ডার লুকাশেংকোর শাসন; ইথিওপিয়ায় নোবেল জয়ী প্রধানমন্ত্রী আবি আহমেদের নির্দেশে সামরিক বাহিনীর মানবাধিকার লঙ্ঘন নিয়েও উদ্বেগ জানানো হয়েছে।


বিভাগ : ভিনদেশ


এই বিভাগের আরও