‘রসের নাগর’ শাহ আব্দুল করিমের আজ জন্মবার্ষিক

যোগফল রিপোর্ট

15 Feb, 2020 07:08am


‘রসের নাগর’ শাহ আব্দুল করিমের আজ জন্মবার্ষিক
শাহ আব্দুল করিম ও দুরবিন শাহ

‘গাড়ি চলে না, চলে না’ ‘বসন্ত বাতাসে সইগো’, কোন মেস্তরি নাও বানাইছে, ‘আগে কি সুন্দর দিন কাটাইতাম’ কেনো পিরিতি বাড়াইলা’ এমন অসংখ্য গানের রচয়িতা বাউল শাহ্ আব্দুল করিমের ১০৪তম জন্মবার্ষিক আজ।

১৯১৬ খ্রিস্টাব্দের ১৫ ফেব্রুয়ারি সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই উপজেলার উজানধল গ্রামে জন্ম নেন এই বাউল। কিংবদন্তিতুল্য এই বাউল গানে গানে অর্ধ শতাব্দীরও বেশি লড়াই করেছেন ধর্মান্ধদের বিরুদ্ধে। এ জন্য মৌলবাদীদের দ্বারা নানা লাঞ্ছনারও শিকার হয়েছিলেন এই বাউল।

তিনি ভাষা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধের সময় গণসংগীত গেয়ে লাখ লাখ তরুণকে উজ্জীবিত করেছেন। পেয়েছেন একুশে পদক।

হাওড়ের পঞ্চপান্ডব খ্যাত শিল্পীদের দুইজন শাহ আব্দুল করিম ও দুরবিন শাহকে ১৯৬৭ সালে লন্ডনে আমন্ত্রণ জানানো হয়। তাদের সেখানে যথাক্রমে শাহ আব্দুল করিমকে ‘রসের নাগর’ ও দুরবিন শাহকে ‘জ্ঞানের সাগর’ উপাধি দেওয়া হয়। পরে তাদের নিয়ে বিবিসিতে একটি প্রামাণ্য অনুষ্ঠান প্রচার হয়।

২০০৯ খ্রিস্টাব্দের ১২ সেপ্টেম্বর কোটি ভক্তকে ছেড়ে চলে যান এই বাউল। প্রতি বছরের মতো এবারও গণমানুষের প্রিয় এই বাউলের জন্মবার্ষিক ঘিরে তার ভক্ত বাউলরা সমবেত হচ্ছেন তার বাড়িতে।


জন্মবার্ষিক উপলক্ষে তার উজানধলের গ্রামের বাড়িতে রয়েছে নানা আয়োজন। আগামী ২৮ ও ২৯ ফেব্রুয়ারি দুদিনব্যাপী লোক উৎসব। জেলার বিভিন্ন এলাকার বাউল ভক্তরাও নানাভাবে স্মরণ করছেন শাহ আব্দুল করিমকে।

তার গান গেয়ে তার প্রতি শ্রদ্ধা আর গানের মধ্যে তাকে বাঁচিয়ে রাখতেই সবার মাঝে এই বাউলের গান ছড়িয়ে দিতে চান ভক্তরা।

শাহ আব্দুল করিমের জন্মভিটায় থাকার ব্যবস্থাসহ সঙ্গীতালয় ও কমপ্লেক্স নির্মাণের দাবি করা হচ্ছে গত প্রায় এক দশক ধরে। একই সঙ্গে তার সুরধারাকে বিকৃতভাবে না গাওয়ার দাবিও তুলেছেন বাউল ভক্তরা।

জাদুঘরে এসে শাহ্ আব্দুল করিমকে জানতে পারছে নতুন প্রজন্ম। জনপ্রিয় গানের রচয়িতা শাহ আব্দুল করিম না থাকলেও গানে আর সুরে তিনি আমাদের মাঝে রয়েছেন, থাকবেন অনন্তকাল।

শাহ আব্দুল করিমের সন্তান শাহ নূর জালাল বলেন, পিতার শেষ ইচ্ছে ছিল বাড়িতে একটি সংগীত বিদ্যালয় স্থাপন করা। তার এ স্বপ্ন পূরণের পাশাপাশি বাউল শাহ আব্দুল করিমের নামে একটি কমপ্লেক্স তৈরি হউক।

তিনি মনে করেন, এই দাবি পূরণ হলে বাউল ভক্তদের থাকার ব্যবস্থা হবে। সংগীত চর্চার পথও সুগম হবে।


বিভাগ : বায়োস্কোপ