গুলশানের সেই ঘটনার পোস্টমর্টেম রিপোর্ট তৈরি

যোগফল রিপোর্ট

05 May, 2021 05:03pm


গুলশানের সেই ঘটনার পোস্টমর্টেম রিপোর্ট তৈরি
সায়েম সোবহান আনভীর

আলোচিত গুলশানের ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার করা কলেজশিক্ষার্থীর লাশের প্রাথমিক পোস্টমর্টেম রিপোর্ট প্রস্তুত করেছেন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের (ঢামেক) ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের চিকিৎসকরা। তবে, পোস্টমর্টেমের ফলকে গোপনীয় হিসেবে উল্লেখ করে, এ সংক্রান্ত কোনো তথ্য প্রকাশ করতে রাজি হননি ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডাক্তার মোহাম্মদ মাকসুদ।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গুলশান বিভাগের উপকমিশনার সুদীপ চক্রবর্তী জানিয়েছেন, পুলিশ এখনও পোস্টমর্টেমের ওই প্রাথমিক রিপোর্ট হাতে পায়নি।

তিনি বলেন, ‘পোস্টমর্টেমের প্রাথমিক প্রতিবেদনে শুধু লাশের শারীরিক অবস্থার বিশ্লেষণ থাকবে। বিস্তারিত কোনো তথ্য এতে থাকবে না। চূড়ান্ত প্রতিবেদনের জন্য আমাদের অপেক্ষা করতে হবে।’

ওই কলেজশিক্ষার্থীকে বিষপ্রয়োগ করা হয়েছে কি না, জানতে এর আগে তার লাশের ডিএনএ ও ভিসেরা প্রতিবেদন চায় পুলিশ। এ দুইটি নমুনা সিআইডির কাছে পাঠানো হয়েছে বলে জানান সুদীপ চক্রবর্তী।

গত ২৬ এপ্রিল গুলশানের একটি ফ্ল্যাট ওই কলেজশিক্ষার্থীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এরপর পোস্টমর্টেমের জন্যে তার লাশ ঢামেকে পাঠানো হয়। পোস্টমর্টেমে চূড়ান্ত প্রতিবেদন পেতে দেড় থেকে দুই মাস সময় লাগবে হবে বলে জানান মোহাম্মদ মাকসুদ।

এ ঘটনায় পরদিন ২৭ এপ্রিল বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীরের বিরুদ্ধে ‘আত্মহত্যায় প্ররোচনার’ অভিযোগ এনে গুলশান থানায় মামলা করেন কলেজশিক্ষার্থীর বোন।

মামলার বিবরণে বলা হয়, আনভীরের সঙ্গে ২১ বছর বয়সী ওই কলেজশিক্ষার্থীর ‘সম্পর্ক’ ছিল। তিনি প্রায়ই শিক্ষার্থীর ফ্ল্যাটে যেতেন এবং তাকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন।

পুলিশ শিক্ষার্থীর লেখা ছয়টি ডায়েরি উদ্ধার করেছে, যেখানে তিনি তার সঙ্গে আনভীরের সম্পর্ক নিয়ে লিখে গেছেন।


বিভাগ : আড়চোখ


এই বিভাগের আরও