চটকদার প্রচার হচ্ছে, মামলার অগ্রগতি হচ্ছে না

যোগফল রিপোর্ট

08 May, 2021 08:22am


চটকদার প্রচার হচ্ছে, মামলার অগ্রগতি হচ্ছে না
সায়েম সোবহান আনভীর

মোসারাত জাহান ওরফে মুনিয়ার মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধানের চেয়ে তাকে নিয়ে আলোচনায় মনোযোগ বেশি দেওয়া হচ্ছে। টানাহ্যাঁচড়া হচ্ছে পরিবারকে নিয়েও। মৃত্যুর ১১ দিন পরও অভিযুক্তকে জিজ্ঞাসাবাদ না করাটা হতাশার।

মুনিয়ার বোন ও মামলার বাদি নুসরাত জাহান এসব কথা বলেন। বিশেষ করে ফেসবুক ও ইউটিউবে ব্যাপক আলোচনা সমালোচনা হচ্ছে। চটকদার অনেক কথা প্রচার করা হচ্ছে, যার কোন ভিত্তি নাই। এখন পর্যন্ত পোস্টমর্টেম রিপোর্ট প্রকাশ করা না হলেও অনেকে ফেসবুক ইউটিউবে মনগড়া তথ্য দিচ্ছেন।

গত ২৬ এপ্রিল গুলশানের একটি ফ্ল্যাট থেকে কলেজশিক্ষার্থী মুনিয়ার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ওই রাতেই মুনিয়ার বোন নুসরাত বাদি হয়ে গুলশান থানায় আত্মহত্যায় প্ররোচনার মামলা করেন। ওই মামলায় একমাত্র আসামি বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর। গুলশান বিভাগের উপকমিশনার সুদীপ কুমার চক্রবর্তী সাংবাদিকদের বলেছিলেন, গুলশানের ফ্ল্যাটে গিয়েই পুলিশ আঁচ করতে পারে, মুনিয়ার মৃত্যুর পেছনে ‘বড় প্ররোচনা’ আছে। তারা ভুক্তভোগীর ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে চেষ্টা করছেন।

বাদি বলেন, পুলিশ নিজেই বলছে আত্মহত্যায় বড় প্ররোচনা আছে, কিন্তু প্ররোচনাকারীকে এখন পর্যন্ত জিজ্ঞাসাবাদ করেছে এমন কোনো খবর তার কাছে নেই। তবে বুধবার বাদিকে আবারও পুলিশ ঢাকায় ডেকে পাঠায়। তিনি ও তার এক আত্মীয় কী ঘটেছিল তা পুলিশকে জানান। পুলিশ তাদের বক্তব্য লিপিবদ্ধ করেছে। বেশ কয়েকটি নাম উল্লেখ করে পুলিশ জানতে চেয়েছে মুনিয়া তাকে চিনতেন কি না।

মুনিয়ার লাশ উদ্ধারের পর, প্রথম দিকে এই ইসুতে পুলিশ কথা বললেও এক সপ্তাহ ধরে এ নিয়ে কোনো মন্তব্য করেনি। ফলে পুলিশের দিক থেকে মামলার অগ্রগতি কতটুকু, সে সম্পর্কে জানা যায়নি।

গুলশান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসান বলেন, মামলাটি অত্যন্ত স্পর্শকাতর। তদন্তকারী কর্মকর্তা হিসেবে তিনি এ সম্পর্কে কোনো মন্তব্য করতে চাইছেন না। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ থেকে তারা পোস্টমর্টেমের প্রাথমিক প্রতিবেদন পেয়েছেন। মুনিয়ার মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে সুস্পষ্টভাবে জানার জন্য পূর্ণাঙ্গ তদন্ত প্রতিবেদন লাগবে।

এই খবর মিডিয়ায়ও নানাভাবে উপস্থাপন করা হয়। তবে ফেসবুকের কল্যাণেই প্রথম খবরটি চাউর হয়।


বিভাগ : আড়চোখ


এই বিভাগের আরও