ভারতে প্রায় ৯ হাজার ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত

যোগফল প্রতিবেদক

24 May, 2021 07:42am


ভারতে প্রায় ৯ হাজার ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত
ছবি প্রতীকী

ভারতে আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস বা কালো ছত্রাকের সংক্রমণ। এরইমধ্যে দেশটিতে এই রোগে আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে ৮ হাজার ৮০০ জন। তুলনামূলক বিরল এই রোগের নাম মিউকোর্মিকোসিস। এতে মৃতের হার প্রায় ৫০ শতাংশ। সাম্প্রতিক মাসগুলোতে ভারতে এই রোগের উচ্চহার দেখা গেছে। মূলত করোনা থেকে সেরে ওঠাদের মধ্যেই এই রোগ দেখা যাচ্ছে। 

চিকিৎসকরা ধারণা করছেন, করোনা থেকে সেরে ওঠার ১২ থেকে ১৮ দিনের মধ্যে এই রোগের উপসর্গ দেখা যায় শরীরে।

এখন পর্যন্ত দেশটিতে যত ব্ল্যাক ফাঙ্গাস রোগি পাওয়া গেছে তার অর্ধেকের বেশিই পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ গুজরাট ও মহারাষ্ট্রে। আরও অন্তত ১৫টি প্রদেশে ৮০০ থেকে ৯০০ জনের বেশি মানুষের এই রোগ ধরা পরেছে। ফলে দেশটির ২৯টি প্রদেশেই ব্ল্যাক ফাঙ্গাসকে মহামারি ঘোষণা করা হয়েছে।

দেশটির বিভিন্ন রাজ্যে এরইমধ্যে এই রোগের জন্য হাসপাতালগুলোতে আলাদা ওয়ার্ড খোলা হয়েছে। এসব ওয়ার্ড দ্রুত ভরে উঠছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। ইন্দোরের একটি হাসপাতালে এক হাজার ১০০টি শয্যা রয়েছে। এরইমধ্যে মাত্র এক সপ্তাহের ব্যবধানে সেখানে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসে আক্রান্ত রোগির সংখ্যা ৮ থেকে ১৮৫ জনে পৌঁছেছে। সেখানকার চিকিৎসক ভিপি পান্ডে জানান, এরমধ্যে ৮০ শতাংশেরই জরুরি সার্জারি প্রয়োজন। হাসপাতালটি এখন আলাদা ২০০ শয্যা নিয়ে ১১টি ওয়ার্ড তৈরি করেছে এই রোগের জন্য। এর আগে বছরে একজন বা দুইজনের মধ্যে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস দেখা যেতো। কিন্তু এখন ভয়াবহ পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে।

পান্ডে জানান, ব্ল্যাক ফাঙ্গাস করোনা থেকেও বেশি চ্যালেঞ্জিং হয়ে উঠছে। যদি সঠিক সময়ে চিকিৎসা না করা হয় তাহলে মৃতের হার বেড়ে ৯৪ শতাংশে পৌঁছাবে। এই রোগের চিকিৎসাও ব্যয়বহুল। স্বল্পতা রয়েছে ঔষধেরও। যাদের মধ্যে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস দেখা যাচ্ছে তাদের প্রায় সবাইই করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। আবার তাদের মধ্যে ডায়বেটিস দেখা গেছে। নারীর তুলনায় পুরুষেরা বেশি আক্রান্ত হচ্ছেন।


বিভাগ : স্বাস্থ্য


এই বিভাগের আরও