শ্রীপুরে নাটকের নামে আপত্তিকর যাত্রা, প্রশাসন নির্বিকার

যোগফল প্রতিবেদক

12 Mar, 2020 03:39am


শ্রীপুরে নাটকের নামে আপত্তিকর যাত্রা, প্রশাসন নির্বিকার

গাজীপুর জেলার শ্রীপুর উপজেলার গাজীপুর ইউনিয়নের নগর হাওলা গ্রামের তরমুজ পাড় এলাকায় মুজিব শতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষে নাট্যানুষ্ঠানের নামে গত দুইরাতে হয়েছে আপত্তিকর যাত্রাপালা। করোনা ভাইরাসের জন্য সতর্কতার দিক বিবেচনা করে যাত্রা বন্ধের জন্য ওই এলাকার কাজীম উদ্দিনের সন্তান শারফুল ইসলাম মঙ্গলবার (১০ মার্চ ২০২০) সন্ধ্যায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার কারণে বাংলাদেশ সরকার সরকারিভাবে দেশের সকল স্থানে জনসমাগমের উপস্থিতিতে সারাদেশে মুজিব বর্ষ আয়োজনে সীমিত করা হয়। যার কারণে বিভিন্ন দেশের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গগণ বাংলাদেশে আসবে না। এমতাবস্থায় আমাদের বাড়ির পাশে কিছু উচ্ছৃঙ্খল উদ্ভট প্রকৃতির লোকজন এ মেলার আয়োজন করে। সেখানে ধর্মীয় উপাসনালয় রয়েছে, ঘনবসতিও রয়েছে। এছাড়াও অনুষ্ঠানের আশেপাশের এলাকায় বেশ কয়েকটি বিদেশি শিল্প কারখানা রয়েছে। ওই কারখানা গুলোতে বিদেশি লোকজন বসবাস করে। তাই তাদের এই অনুষ্ঠানে আসার সম্ভাবনা  আছে। এতে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই এলাকাবাসীর সমস্যা বিবেচনা করে ডাদের সাথে পরামর্শ করে এই অনুষ্ঠান বন্ধ করার আবেদন করছি।

অভিযোগকারী যোগফলকে জানিয়েছেন, থানায় লিখিত অভিযোগ জানালেও পুলিশ কোনও ব্যবস্থা নেয়নি। দ্বিতীয় রাতের আপত্তিকর দৃশ্যের ভিডিয়ো করতে দেওয়া হয়নি। ৯৯৯ নম্বরে ফোন করেও কোনও ফল হয়নি।

মঙ্গলবার (১০ মার্চ ২০২০) রাতে আপত্তিকর নৃত্য হয়েছে। বুধবার (১১ মার্চ ২০২০) রাতেও একইভাবে নাট্যানুষ্ঠানের নামে আপত্তিকর নাচের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হয়েছে। 

করোনা ভাইরাস ঘটনায় যেখানে মুজিব বষের্র অনুষ্ঠানে বিদেশি অতিথিরা আসবেনা, যেখানে সকল সমাবেশ সীমিত আকারে করার নির্দেশ দেওয়া হলেও গত দুইরাত ব্যাপী সারারাত আপত্তিকর যাত্রা হয়েছে। 

এ ব্যাপারে নাগরিক অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহবায়ক আনোয়ার হোসাইন বুধবার (১১ মার্চ ২০২০) বিকালে মুজিব বর্ষের নামে এসব আপত্তিকর বন্ধের প্রতিবাদ করে তার ব্যক্তিগত ফেসবুক আইডিতে যা লিখেছেন হুবহু তুলে ধরা হলো, “বঙ্গবন্ধুর নাম ব্যবহার করে চলছে অশ্লীলতা- দেখার কেউ নেই! নাট্যানুষ্ঠান করার কথা বলে সারারাত ধরে চলছে নগ্ন নৃত্য! এই অশ্লীলতার (আপত্তিকর) স্বাধীনতা দিলো কারা? প্রশাসনের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করার পরও কেন বন্ধ হলোনা অনুষ্ঠান? 

প্রশাসন অবহিত থাকার পরও যখন অপরাধ সংগঠিত হয় - তখন এই অপরাধের দায় প্রশাসন এড়াতে পারেনা। অশ্লীল (আপত্তিকর) নগ্ন নৃত্য করে মুজিববর্ষ পালন করা - জাতির পিতাকে সম্মান নয় বরং অসম্মান ও অমর্যাদা করা হচ্ছে। এমন ধৃষ্টতা ক্ষমা করা হবেনা। 

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে রং তামাশা বন্ধ করুন, অবিলম্বে এই অশ্লীলতা বন্ধ করুন।”

নাটকের নামে প্রথম রাতে আপত্তিকর যাত্রা পরিবেশন করায় স্থানীয় অধিবাসীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। কারণ বাড়ির পাশে এসব অনুষ্ঠান হওয়ায় বাবা-মায়ের কথা না শুনে উঠতি বয়সের ছেলেরা সারারাত এসব আপত্তিকর ব্যাপার দেখছে। এতে সামাজিক অবক্ষয় দেখা দিচ্ছে। 

থানায় অভিযোগ দেওয়ার পর পুলিশ ঘটনাস্থলে না আসায় অভিযোগকারী ব্যক্তি ৯৯৯ নম্বরে কল দিলে মঙ্গলবার রাতে শ্রীপুর থানার এসআই আশিষ কুমার মঙ্গলবার রাতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তবুও আপত্তিকর কর্মকাÐ বন্ধ করার নির্দেশ দেননি তিনি। বুধবার সারারাত একইভাবে সারারাত আপত্তিকর যাত্রা হয়েছে। 

এসআই আশিষ কুমার ১১ মার্চ রাতে  যোগফলকে জানিয়েছেন, আমি গতকাল ওখানে গিয়ে আয়োজকদের বলেছি এ অনুষ্ঠানের ব্যাপারে অভিযোগ আছে। বেশি সময় চালানো যাবে না। আজকে আমার নাইট ডিউটি নেই। মোবাইল টিমে যারা থাকবে তাদের পাঠানোর ব্যবস্থা করবো।

এ ব্যাপারে শ্রীপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লিয়াকত আলী জানিয়েছেন, ‘করোনা ভাইরাসের ব্যাপারে এসব অনুষ্ঠান বন্ধ করার নির্দেশ নেই। অশ্লীলতা (আপত্তিকর) হলে এটা আমরা দেখবো'।


বিভাগ : উপজীব্য


এই বিভাগের আরও