যোগফল প্রতিবেদক : গত ১৫ জানুয়ারি বিকাল পাঁচটা থেকে ১৬ জানুয়ারি ভোর সাড়ে পাঁচটা পর্যন্ত আসামীরা ৪ জন মিলে ভিকটিমকে জন্মদিনের কথা বলে ডেকে নিয়ে নয়নপুরস্থ একটি বাসায় জন্মদিনের কেক কেটে সবাই মিলে আনন্দ উল্লাস করে। জন্মদিন অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে আসামিরা পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে ভিকটিমকে এর্নাজি ড্রিংক এর মাধ্যমে নেশা জাতীয় দ্রব্য মিশিয়ে কৌশলে ভিকটিমকে পান করিয়ে অজ্ঞান করে।


পরে একটি ঝোপের ভিতর নিয়ে ভিকটিমের হাত, পা, মুখমন্ডল বাধিয়া তাকে পালাক্রমে গণধর্ষণ করে। আসামি মো. ইমরান হাসান সুজন তার মোবাইল ফোনে ওই ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে তার ফেসবুক আইডিতে আপলোড করেছিল বলেও স্বীকার করে।